Connect with us

Hi, what are you looking for?

Newsbd71Newsbd71

সারাদেশ

আদালতে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলেন ওসি আবুল খায়ের

ওসি প্রদীপসহ ৮ জনের ব্যাংক হিসাব স্থগিত
ওসি প্রদীপসহ ৮ জনের ব্যাংক হিসাব স্থগিত

কক্সবাজার : মেজর (অব.) সিনহা নিহতের ঘটনায় শিপ্রা দেবনাথের বিরুদ্ধে পুলিশের দায়ের করা মামলায় দুটি জব্দ তালিকা তৈরি; একটির সঙ্গে অপরটির মিল না থাকায় আদালতের কাছে ভুল স্বীকার করে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন কক্সবাজারের রামু থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের।
বৃহস্পতিবার (২৭ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. দেলোয়ার হোছাইনের আদালতে ক্ষমা প্রার্থনা করেন তিনি। কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবী বাপ্পী শর্মা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্র জানায়, মেজর (অব.) সিনহা হত্যার পর তাদের অবস্থান করা নীলিমা রিসোর্ট থেকে ২৯টি সামগ্রী জব্দ করে রামু থানা পুলিশ। এ ঘটনায় দুটি জব্দ তালিকা তৈরি করা হয়। দুটির মধ্যে অমিল থাকায় ব্যাখ্যা জানতে ওসি আবুল খায়েরকে তলব করেন আদালত। এর অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার আদালতে উপস্থিত হয়ে নিজের ভুল স্বীকার করেন ওসি। একই সঙ্গে লিখিত শোকজের জবাবও জমা দেন তিনি।
গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের মারিশবুনিয়া পাহাড়ে ভিডিওচিত্র ধারণ করে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে কক্সবাজারের হিমছড়ি এলাকার নীলিমা রিসোর্টে ফেরার পথে শামলাপুর তল্লাশি চৌকিতে গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ। এ ঘটনার পর নীলিমা রিসোর্টে এসে পুলিশ দুটি রুমের সব মালামাল জব্দ করে সিনহার সহযোগী শিপ্রাকে নিয়ে মাদক আইনে মামলা করে। জামিনে মুক্তি পেয়ে তার কাছ থেকে জব্দ করা ২৯টি সামগ্রীর বিষয় সামনে আনেন শ্রিপা। পরে আদালতের নির্দেশে সেসব সামগ্রী মামলার তদন্ত সংস্থা র‌্যাবের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ।

নিউজবিডি৭১/ এম কে / ২৭ আগস্ট ২০২০

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফেসবুকে ২৪ লক্ষের পরিবার

সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ

কালচার

সিলেটে বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা প্রদান করেছে স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন ডে লাইফ সিল্ক ফাউন্ডেশন। সম্প্রতি নিজেদের স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে সংগঠনটির প্রতিনিধিরা হাজির হয় সিলেটের...

কপিরাইট Ⓒ ২০১২-২০২১ নিউজবিডি৭১.নেট । সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বাড়ী- ৪৯ (১ম তলা), রোড- ১২, সেক্টর-১১, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০, বাংলাদেশ। প্রকাশক- মোহাম্মদ মানিক খান