আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, একের পর এক আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি অবশেষে ভর করেছে হেফাজতের জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতি, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ওপর।বিএনপির এখন রাজনৈতিক আইসোলেশন দরকার বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সকালে ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে এসব কথা বলেন

তিনি বলেন, করোনা মহামারির এ সময়ে বিএনপি নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে সরকার হটানোর নামে ধান ভানতে শীবের গীত গাইছে। আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা যখন অসহায়, কর্মহীন, খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে এবং স্বাস্থ্যবিধি মানতে জনগণকে সতর্ক করছে তখন বিএনপি তাদের উগ্র সাম্প্রদায়িক মিত্রদের নিয়ে দেশে নৈরাজ্য তৈরির অপপ্রয়াস চালাচ্ছে ও দেশের সম্পদ জ্বালিয়ে দিচ্ছে।

কাদের বলেন, বিএনপির অপরাজনীতি বুমেরাং হতে বাধ্য। করোনা নিয়ে বিএনপি নির্মম ও নির্লজ্জ রাজনীতি করছে, তারা একবার বলে লকডাউন দিতে হবে, আবার বলে লকডাউন দিলে মানুষ খাবে কী? বিএনপির এমন দ্বিমুখী নীতি এবং করোনা নিয়ে অপরাজনীতি মানুষকে বিভ্রান্ত করছে।

বিএনপি সরকারকে সরাতে ছাত্র ও শ্রমিকদের ঐক্যের কথা বলছেন। কিন্তু তারা ছাত্র-শ্রমিকদের কোনো সাড়া পাচ্ছে না এবং জনগণেরও কোনো আস্থা পাচ্ছে না বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

করোনা মোকাবিলায় সরকার সমন্বিতভাবে কাজ করছে প্রকারান্তরে বিএনপির বক্তব্যে প্রমাণ করে তাদের লেজে-গোবরে দশা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, জনগণ মনে করে, বিএনপির মনোজগতে ভাইরাসের নেতিবাচক প্রভাব বাসা বেঁধেছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি করোনার চেয়েও ভয়াবহ ভাইরাসে আক্রান্ত, যার লক্ষণ নেতিবাচকতা, মিথ্যাচার,ষড়যন্ত্র আর আগুন সন্ত্রাস। বিএনপির এখন রাজনৈতিক আইসোলেশন দরকার বলে মনে করে জনগণ।

দ্বিতীয় আমিন বাজার সেতু নির্মাণকাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, ঢাকা আরিচা মহাসড়কের আমিনবাজার, সালেহপুর ও নয়ারহাটে তিনটি সেতু নির্মাণের লক্ষ্যে একটি প্রকল্প গ্রহণ করে সরকার। এই সেতুটি প্রকল্পের আওতায় নির্মাণ করা হচ্ছে। ৮ লেনের সেতু ছাড়াও সেতুর দুপ্রান্তে দেড় কিলোমিটার সংযোগ সড়ক থাকবে। সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে প্রায় ২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে ২৩৩ মিটার দীর্ঘ দ্বিতীয় আমিন বাজার সেতু।

তিনি বলেন, আমিনবাজার সেতুর ঢাকা প্রান্তে গাবতলী বাস টার্মিনালের সামনের সড়কটি ১২ লেন কিন্তু বিদ্যমান আমিনবাজার সেতুটি ৪ লেন হওয়ায় যানবাহন প্রবেশের সময় সেতুর মুখে প্রায় সব সময় যানজট লেগে থাকে। এছাড়া প্রস্তাবিত ঢাকা ইনারসার্কুলার রোড বিদ্যমান আমিনবাজার সেতুর গাবতলী প্রান্তে সংযোগ সড়কের উপর দিয়ে অতিক্রম করবে। তাই সার্কুলার রোডের যানবাহনের আগমন-নির্গমনের সুবিধার্থে আরও অতিরিক্ত ৪ লেন সেতুর প্রয়োজন। ফলে আমিনবাজার সেতুর পাশের পুরাতন স্টিল ব্রিজটি তুলে ৮ লেন বিশিষ্ট সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

আগামী ২০২৩ সালের ১ ফেব্রুয়ারি সেতু নির্মাণকাজ সমাপ্তের কথা রয়েছে।

 

 

আই এইচ