Connect with us

Hi, what are you looking for?

Newsbd71Newsbd71

সারাদেশ

করোনাযুদ্ধ জয়ে ‘সুপার হিরো’র ভূমিকায় জেলা পুলিশ

করোনাযুদ্ধ জয়ে 'সুপার হিরো'র ভূমিকায় জেলা পুলিশ
করোনাযুদ্ধ জয়ে 'সুপার হিরো'র ভূমিকায় জেলা পুলিশ

সাইফুল ইসলাম রদ্র ,নরসিংদী : করোনাযুদ্ধ জয়ে নরসিংদীতে ‘সুপার হিরো’র ভূমিকা পালন করছেন জেলা পুলিশের সদস্যরা। অব্যাহত রেখেছেন আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রণসহ লকডাউন নিশ্চিতে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ। একই সাথে চালাচ্ছেন সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত ক্যাম্পেইন।

রাজনিতিকদের সাথে পাল্লা দিয়ে নির্ভীক পুলিশ সদস্যরা মাথায় গামছা বেধে কাটছেন অসহায় কৃষকের জমির পাকা ধান। বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিতরণ করছেন ত্রাণ সামগ্রী। হট লাইনে ফোন দিলেই মধ্যবিত্ত ও নিন্ম মধ্যবিত্ত অভুক্ত মানুষের ঘরে পৌছে দিচ্ছেন খাদ্য সামগ্রী।

এতিম, প্রতিবন্ধী ভাসমান ও ছিন্নমূল অনাহারী মানুষের মধ্যে বিতরন করা হচ্ছে ইফতার। স্বাস্থ্য সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌছে দিতে পুলিশের ভ্রাম্যমান ফ্রি মেডিক্যাল টিম চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। ডাক্তারদের সাথে নিয়ে তৈরী ভ্রাম্যমান টিম অ্যাম্বুলেন্সসহ গাড়ী বহর স্বাস্থ্য সেবা নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন এলাকা থেকে এলাকায়। সম্প্রতি মানুষকে ঘরে রাখতে জেলা পুলিশের উদ্যোগে সুলভ মূল্যে দৈনন্দিন বাজার সরবরাহ কার্যক্রমের উদ্ধোধন করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, করোনার ছোবল থেকে পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের রক্ষা করতে পুলিশ লাইনস ও পুলিশ সুপার কার্য়ালয়ে জীবাণুনাশক টার্নেল বসানো হয়েছে। করোনা আক্রান্ত হয়ে একাধিক মৃত ব্যক্তির লাশ দাফনে এলাকাবাসী ভয় পেলেও পুলিশ সদস্যরা স্বমহিমায় এসব লাশের দাফন সম্পন্ন করছেন।
করোনার দুর্যোগ মোকাবেলায় মানুষকে সর্বাধিক সেবা প্রদান করে আলোচনায় এখন জেলা পুলিশ। তাই সাধারণ মানুষের মুখে মুখে এখন জেলা পুলিশের ভূয়সী প্রশংসা। সর্বশেষ লকডাউন নিশ্চিতে জেলা পুলিশের কর্মকা ও কৃষকের ধান কেটে দিয়ে আলোচনার সম্মুখ ভাগে চলে আসেন এই বাহিনীর সদস্যরা।

জেলা পুলিশ তথ্য অনুযায়ী, করোনা সংকট মোকাবেলায় কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবের শুরথেকেই জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে জনগণের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি, স্বাস্থ্য নিরাপত্তা সামগ্রী প্রদান, অসহায় দুস্থ ও পরিবহন শ্রমিকদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণসহ নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। রমজান মাসের শুরতেই নরসিংদী জেলা পুলিশের ব্যবস্থাপনায় ‘‘সুলভ মূল্যে ঘরের বাজার” কার্যক্রম উদ্ধোধন করা হয়েছে। এ কার্যক্রমের মাধ্যমে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য চাল, ডাল, তেল, ছোলা, বেশন, লবন, চিনি, আলু, পিয়াজ, বেগুন, ইত্যাদি সূলভ মূল্যে মানুষের দ্বার প্রান্তে পৌছে দেয়া হচ্ছে। যাতে করে বাজারগুলোতে মানুষের ভিড় কমানো সম্ভব হয় এবং মানুষ জনকে সংক্রমনের হাত থেকে বাঁচানো যায়।

তাছাড়া পবিত্র মাহে রমজানে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে খুচরা বাজারের চেয়ে কম মূল্যে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিক্রয় করা হচ্ছে। কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি সবজি ক্রয় করা হচ্ছে। ফলে কৃষকরা সবজির ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে।

নরসিংদী সদর-সহ, মাধবদী, পলাশ, শিবপুর মডেল, মনোহরদী, রায়পুরা ও বেলাব থানাধীন বিভিন্ন স্থানে গণজমায়েত রোধ, অযথা ঘোরাঘুরি বন্ধে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার লক্ষ্যে সাড়াশী অভিযান পরিচালনা করছে জেলা পুলিশ।

এছাড়া আসন্ন রমজান মাস উপলক্ষে ব্যবসায়ীরা যাতে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বাড়িয়ে না দেয় সে লক্ষ্যে বাজার গুলোতে সাড়াশী অভিযান চালানো হয়।

মত বিনিময়ের মাধ্যমে ব্যবসায়ীদেরও সতর্ক করা হয়েছে। ভাইরাসের সংক্রমন সকলকে ঘরে অবস্থানের জন্য কঠোর নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এর বাহিরেও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, এতিম, পথ শিশু, রিক্সাচালক, ভিক্ষুক, দুঃস্থ ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে জেলার ৬টি উপজেলার ৭টি থানায় ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

লকডাউন নিশ্চিতে জীবনবাজী রেখে দিবানিশি কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন জেলা পুলিশের সদস্যরা।

করোনার কবল থেকে মানুষকে সুস্থ রাখতে শহরে সচেতনামূলক লিফলেট বিতরন ও মাইকিং করা হচ্ছে। জোরদার করা হয়েছে পুলিশি টহল। নরসিংদী জেলার সাথে অন্যান্য জেলা থেকে প্রবেশ ও প্রস্থান রোধে সড়ক মহাসড়ক ও শহরের গুরত্বপূর্ন স্থানগুলোতে পুলিশের চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। সমস্যায় পড়া মানুষগুলোকে সাহায্যে স্বশরীরে উপস্থিত হচ্ছেন জেলা পুলিশের কর্ণধার প্রলয় কুমার জোয়ারদার (বিপিএম বার,পিপিএম বার)।

জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও মিডিয়া সমন্বয়কারী পুলিশ পরিদর্শক রপম কুমার সরকার (পিপিএম) জানিয়েছেন, নরসিংদী জেলা পুলিশের ‘সুপার হিরো’ হলো আমাদের এসপি প্রলয় কুমার জোয়ারদার স্যার। স্যারের সুদক্ষ নির্দেশনায় ৬টি উপজেলার ৭টি থানার সকল পুলিশ সদস্যরা করোনা সংকট মোকাবেলায় ও লকডাউন নিশ্চিতে দিবানিশি কাজ করে যাচ্ছে। অসহায়দের খাদ্য সহায়তা থেকে শুর করে হ্যান্ড স্যানিটেইজার, মাক্স বিতরণসহ সকল ধরনের কাজ করা হচ্ছে।
নরসিংদী পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার (বিপিএম বার,পিপিএম বার) বলেন, পুলিশের প্রধান কাজ হলো জনগণের জানমালের নিরাপত্তা ও আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রণে রাখা। এই দুটি কাজের পাশাপাশি এখন আমরা কোভিড-১৯ মোকাবেলা দিন রাত কাজ করে চলেছি। লকডাউন নিশ্চিত ও মানুষকে ঘরে রাখতে পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ জেলা থেকে মানুষের প্রবেশ ও প্রস্থান রোধে সীমান্তবর্তী এলাকায় ৭২টি চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। এ পযর্ন্ত দশ হাজারেরও বেশি পরিবারের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে চিকিৎসকদের নিয়ে ভ্রাম্যমান মেডিক্যাল টিম করা হয়েছে। একই সাথে টেলি সেবা চালু করা হয়েছে। করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃতদের দাফন কাফন করছে পুলিশ সদস্যরা। বাজার নিয়ন্ত্রণসহ গুজব রোধে সকল ধরনের কাজ করছে আমাদের পুলিশ। এক কথায় বলতে গেলে কোভিড-১৯ মোকাবেলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক অবস্থার প্রেক্ষিতে সকল পুলিশ সক্রিয় ভূমিকা রাখছে।

নিউজবিডি৭১/এম কে/১৯ মে ২০২০

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফেসবুকে ২৪ লক্ষের পরিবার

বাংলাদেশ

বাংলাদেশ

গত দুই মাসের মধ্যে তিন দফা বন্যার কবলে পড়েছে সিলেট-সুনামগঞ্জ৷ তবে এবারের বন্যা ভয়াবহ রূপ নিয়েছে৷ সিলেটে কেন এত ঘন ঘন বন্যা? গবেষকরা বলছেন,...

কপিরাইট Ⓒ ২০১২-২০২১ নিউজবিডি৭১.নেট । সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বাড়ী- ৪৯ (১ম তলা), রোড- ১২, সেক্টর-১১, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০, বাংলাদেশ। প্রকাশক- মোহাম্মদ মানিক খান