মোঃআবদুল আউয়াল সরকার, কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধিঃ

 

কুমিল্লা মহানগরীর ঝাউতলাতে অবস্থিত মেডিকেয়ার জেনারেল হসপিটাল। কম খরচে চিকিৎসাসেবা দিয়ে এরই মধ্যে হাসপাতালটি বেশ সুনাম অর্জন করেছে।

মেডিকেয়ার জেনারেল হসপিটালে অনেকগুলো বিভাগ রয়েছে। এগুলো হলো ইন্টারনাল মেডিসিন, নিউরোমেডিসিন, হৃদরোগ ও বাতজ্বর, ডায়াবেটিস ও হরমোন, বক্ষব্যাধি, গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ও লিভার, কিডনি ও ইউরোলজি, চর্ম ও যৌন, ফিজিক্যাল মেডিসিন, গাইনি ও প্রসূতিরোগ, নবজাতক ও শিশুরোগ, জেনারেল ও ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি, নিউরো ও স্পাইন সার্জারি, কোলরেক্টাল সার্জারি, অর্থোপেডিক সার্জারি, শিশু সার্জারি, ইএনটি ইত্যাদি।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকজন হলেন, অধ্যাপক ডাঃমোঃআবদুর রশিদ,ডাঃবুলবুল আহমেদ, ডাঃকামাল হোসেন মিয়াজী, ডাঃমোঃ হাফিজুর রহমান,ডাঃএনামুল হক, ডাঃ মামুনুর রশিদ ভূইয়া,ডাঃ গোলাম গাউস, ডাঃ রঞ্জন তালুকদার, ডাঃ সরতাজ বেগম,ডাঃ লিপি পাল, ডাঃ রোমানা পারভীন, ডাঃ গোলাম সরওয়ার হোসেন খাঁন শুভ,ডাঃআমিনুল ইসলাম, ডাঃনাফিজ ইমতিয়াজ উদ্দিন আহমেদ, ডাঃ জুবায়ের আহমদ, ডাঃএসএম তৌহিদুর রহমান সুমন, ডাঃ সজিব নূর, ডাঃ জাকির হোনেন, প্রমুখ,ডাঃ এইচ এম হাসিব।

ভিজিট ৩০০ থেকে ৮০০ টাকার মধ্যে। সাধারণ বেডভাড়া ১০০০ টাকা, সিঙ্গল কেবিন ভাড়া ১৫০০ থেকে ৩০০০ টাকার মধ্যে।
ইমার্জেন্সি ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকে।

ল্যাবরেটরি ও ইমেজিং রয়েছে আধুনিক যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম সমৃদ্ধ ল্যাবরেটরি ও রেডিওলজি ইমেজিং বিভাগ। এখানে ক্লিনিক্যাল প্যাথলজি, হরমোনাল টেস্ট, বায়োকেমিস্ট্রি, ইমিওনোলজি, সেরোলজি, ক্যান্সার মার্কারসহ অত্যাধুনিক ৩২ স্লাইস সিটি স্ক্যান, আল্ট্রাসনোগ্রাম, ইকো, কালার ডপলারসহ নানা পরীক্ষা করা হয়।

এখানে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, রিসেপশনিস্ট, বিলিং এক্সিকিউটিভ, টেকনিশিয়ানসহ নারী স্টাফদের নিয়ে চালু রয়েছে কেয়ার সেন্টার। রোগীদের সেবায় ২৪ ঘন্টা অ্যাম্বুল্যান্স সার্ভিস চালু আছে। এখানকার ইনডোর ফার্মেসিতে ডিসকাউন্টে ওষুধ বিক্রি করা হয়। হাসপাতালের সেবা সম্পর্কে কোনো অভিযোগ থাকলে ০১৭৮২৯৯৩৯৮৮(হসপিটাল),০১৭১১৫৮৬৯৭৮, ০১৮১৬১৩৫৭৭৩ (সাব্বির আহমেদ) নম্বরে ব্যবস্হাপনা পরিচালক বরাবর জানানো যাবে। কর্তৃপক্ষের বক্তব্যে মেডিকেয়ার জেনারেল হসপিটালের ব্যবস্হাপনা পরিচালক সাব্বির আহমেদ বলেন, সামর্থ্যযোগ্য খরচে চাওয়া-পাওয়ার যুগলবন্দি এই হাসপাতাল। অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের চিকিৎসা সহায়তা, দক্ষ নার্সদের যত্ন, পরিচর্যা ও স্টাফদের আন্তরিকতার কোনো কমতি নেই এখানে। তাদের লক্ষ্য কম খরচে মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা।