Connect with us

Hi, what are you looking for?

Newsbd71Newsbd71

সারাদেশ

চিরিরবন্দরে ১৫ দিনেও মিলছে না করোনা টেস্টের রিপোর্ট

কিট সংকটে ঈশ্বরদীতে করোনা সনাক্তকরণ বন্ধ
কিট সংকটে ঈশ্বরদীতে করোনা সনাক্তকরণ বন্ধ

মোহাম্মাদ মানিক হোসেন, চিরিরবন্দর : দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে করোনায় আক্রান্ত সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহের ১৫ দিন অতিবাহিত হলেও মিলছে না করোনা টেস্টের রিপোর্ট। এখন অধিকাংশ রোগী উপসর্গ ছাড়াই করোনা শনাক্ত হচ্ছে।

আর যারা নমুনা দিচ্ছেন তাদের ফলাফল আসতে দেরি হওয়ায় ওই ব্যক্তিরা নমুনা দেয়ার পর হাটে-বাজারে ও আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে যাচ্ছেন। ফলে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।
উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ১০ জুন পর্যন্ত সংগৃহীত নমুনার সংখ্যা ৩২০ এবং প্রকাশিত রিপোর্টের সংখ্যা ২৩০। আর এখন পর্যন্ত উপজেলায় করোনা পজিটিভ ব্যক্তির সংখ্যা ৪৯ জন, মৃত্যু ৪ জন ও সুস্থ ১২ জন।

জানা গেছে, চিরিরবন্দর উপজেলায় করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা ও করোনা আক্রান্ত সন্দেহভাজন ৯০ জনের নমুনা সর্বশেষ ১০ই জুন পর্যন্ত দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলেও বিগত ১৫ দিনেও এসব পরীক্ষার ফলাফল হাতে পায়নি উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এ অবস্থায় দ্রুত স্বাস্থ্য সেবা ও প্রশাসনিক পদক্ষেপ নিতে পারছে না উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আজমল হক জানান,দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবের পিসিআর মেশিনে প্রতিদিন ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করার সক্ষমতা রয়েছে দিনে দিনে নমুনা সংগ্রহের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় ফলাফল আসতে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে। নতুন করে চাহিদা অনুযায়ী আরো পিসিআর মেশিন স্থাপন করা হলে এই সমস্যা দূর হবে।

নিউজবিডি৭১/এম কে / ২৬ জুন ২০২০

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফেসবুকে ২৪ লক্ষের পরিবার

সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ

কালচার

সিলেটে বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা প্রদান করেছে স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন ডে লাইফ সিল্ক ফাউন্ডেশন। সম্প্রতি নিজেদের স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে সংগঠনটির প্রতিনিধিরা হাজির হয় সিলেটের...

কপিরাইট Ⓒ ২০১২-২০২১ নিউজবিডি৭১.নেট । সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বাড়ী- ৪৯ (১ম তলা), রোড- ১২, সেক্টর-১১, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০, বাংলাদেশ। প্রকাশক- মোহাম্মদ মানিক খান