আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

 

রোববার থেকে দক্ষিণ আফ্রিকায় অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার উৎপাদিত করোনাভাইরাসের টিকা প্রয়োগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মূলত এক গবেষণায় দেখা গেছে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দক্ষিণ আফ্রিকায় দেখা দেওয়া করোনাভাইরাসের নতুন রূপের বিরুদ্ধে খুব একটা কার্যকর নয়। সে কারণেই দক্ষিণ আফ্রিকা এই টিকা প্রয়োগ বন্ধ করে দেয়। খবর সিএনএন ও আল জাজিরার।

এ বিষয়ে রোববার দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জেওয়ালি এমখিজে বলেছেন, ‘অস্থায়ীভাবে অ্যাস্ট্যাজেনেকার টিকা প্রয়োগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি কিভাবে এই টিকাটিকে আরো কার্যকর করা যায় নতুন করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে। তার আগ পর্যন্ত আমরা ফাইজার বায়োএনটেক ও জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা প্রয়োগ করতে থাকবো।’

সম্প্রতি অক্সফোর্ড ও আস্ট্রাজেনেকার যৌথ এক গবেষণায় দেখা গেছে এই টিকা করোনার উপসর্গ তীব্র হওয়া ঠেকাতে ও মাঝারি ঘরনার অসুস্থতায় কার্যকর। কিন্তু খুব বেশি অসুস্থ ও নতুন রূপের বিরুদ্ধে এটার কার্যকারিতা কম।

দক্ষিণ আফ্রিকায় ২ হাজার তরুণের ওপর টিকার পরীক্ষা চালিয়েছিল অক্সফোর্ড ও আস্ট্রাজেনেকা। এতে দেখা গেছে টিকা গ্রহীতাদের রোগের মাত্রা তীব্র হয়নি কিংবা তাদেরকে হাসপাতালে নেওয়ার প্রয়োজন হয়নি বা তারা মারা যায়নি। অবশ্য এই স্বেচ্ছাসেবকরা সবাই তরুণ ও তাদের গড় বয়স ছিল ৩১ বছর। সেই হিসেবে বৃদ্ধদের তুলনায় তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি থাকা সত্ত্বেও টিকা নেওয়ার পর এই স্বেচ্ছাসেবকরা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।