Connect with us

Hi, what are you looking for?

Newsbd71Newsbd71

বিশ্ব

বিমান সফরে জেনে রাখতেই হবে জরুরি প্রশ্নের উত্তর

বিমান সফরে জেনে রাখতেই হবে ৮টি জরুরি প্রশ্নের উত্তর
বিমান সফরে জেনে রাখতেই হবে ৮টি জরুরি প্রশ্নের উত্তর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ঢাকা : করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে বিমান সফরে বদেল গিয়েছে অনেক নিয়ম। এখন অনেক বিধিনিষেধ। সফরের আগে আটটি জরুরি প্রশ্নের উত্তর জেনে রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

১। আপনি কী করে বুঝবেন যে আপনার কোনও সহযাত্রী কোভিড-১৯ সংক্রমিত কিনা?

প্রথমেই মনে রাখা দরকার যে এটা নিশ্চিত ভাবে জানা সম্ভব নয়। যেমনটা আপনার সম্পর্কেও অন্য যাত্রীরা নিশ্চিত হয়ে জানতে পারবেন না। নির্ভর করতে হবে বিমান কর্তৃপক্ষের উপরে। যা ঠিক হয়েছে তাতে, প্রত্যেক যাত্রীকেই স্মার্টফোনে ‘আরোগ্য সেতু’ অ্যাপ ডাউনলোড করে রাখতে হবে। অন রাখতে হবে ফোনের ব্লু-টুথ। আর তাতে যেসব যাত্রী কোভিড মুক্ত বলে দেখাবে তাঁরাই সফর করতে পারবেন। এছাড়া কোনও যাত্রীর শরীরে কোনওরকম উপসর্গ থাকলে বা থার্মাল স্ক্রিনিংয়ে কোনও সমস্যা দেখা গেলে যাত্রা করা যাবে না। এছাড়াও অসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রক জানিয়েছে, এখন কোনও কনটেনমেন্ট জোনের বাসিন্দা সফর করতে পারবেন না। এর জন্য যাত্রীদের লিখিত ভাবে জানাতেও হবে যে তিনি বা তাঁরা কনটেনমেন্ট জোন থেকে আসেননি। একটা পিএনআর-এ একাধিক যাত্রী থাকলে একটি ডিক্লারেশনই যথেষ্ট।

২। কতটা ব্যাগ আপনি সফরের সময়ে সঙ্গে নিতে পারবেন?

একটি কেবিন ব্যাগ ও একটি চেক-ইন ব্যাগ নিয়ে যাওয়া যাবে। কোনও ভাবেই একাধিক চেক-ইন ব্যাগ নেবেন না। সেক্ষেত্রে বিমানবন্দরে গিয়ে সমস্যায় পড়তে হতে পারে।

৩। ল্যাপটপের জন্য কি আলাদা ব্যাগ নেওয়া যাবে? সেটাকেও কি কেবিন ব্যাগ হিসেবে গোনা হবে?

একটি ল্যাপটপ ব্যাগ কিংবা একটি লেডিজ হ্যান্ড ব্যাগ নেওয়া যাবে। এর বেশি নয়।

৪। বিমানে কোনও খাবার পাওয়া যাবে না। কিন্তু খিদে পেলে কী করবেন?

যাত্রীরা সফরের সময়ে শুকনো খাবার নিয়ে যেতে পারেন। তবে বিমানের ভিতরে তা খাওয়া যাবে না। কারও স্বাস্থ্যের কারণে সেটা করতে হলেও মনে রাখতে হবে খাওয়া মানেই মাস্ক খোলা। আর তার মানেই নিজের এবং অপর যাত্রীর ঝুঁকি বাড়িয়ে দেওয়া।

৫। শুধুই ওয়েব চেক-ইন হবে। অর্থাৎ কাউন্টারে যেতে হবে না। তাহলে আপনার ব্যাগে ট্যাগ লাগানো হবে কী ভাবে?

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে যে নিয়ম করা হয়েছে তাতে নিজের ব্যাগে নিজেকেই ট্যাগ লাগাতে হবে। ওয়েব চেক-ইন এর পরে ব্যাগেজ ট্যাগের প্রিন্ট আউট নিয়ে সেটা ব্যাগে লাগিয়ে দিতে হবে। একান্তই প্রিন্ট আউটা না পাওয়া গেলে সাদা কাগজে নাম ও পিএনআর লিখে ব্যাগে আঠা দিয়ে লাগিয়ে দিতে হবে।

৬। যে সব বয়স্ক যাত্রীর হাঁটায় সমস্যা রয়েছে তাঁরা কী করবেন?

প্রথমত বয়স্ক যাত্রীদের এই সময়ে সফর করতে নিষেধ করা হয়েছে। কারণ, বয়স্কদের সংক্রমণের ভয় বেশি। সফর করা একান্তই জরুরি হলে তাঁদের জন্য হুইলচেয়ার ও গল্ফ কার্টের ব্যবস্থা থাকবে। তবে প্রতিবার ব্যবহারের পরে সেগুলি স্যানিটাইজ করা হবে। একই সঙ্গে ট‌্রলি ব্যবহারেও না বলা হয়েছে। তবে জরুরি প্রয়োজন হলে মিলবে।

৭। কোনও যাত্রীর যদি একটি বিমান থেকে নেমে একইদিনে অন্য বিমান ধরার থাকে তবে তিনি কোথায় অপেক্ষা করবেন?

সব শহরেই হোটেল বন্ধ। তাই যাত্রীরা বিমানবন্দরের ট্রান্সিট এরিয়ায় অপেক্ষা করতে পারবেন। তবে কোনও ভাবেই সেই এলাকা থেকে বের হতে পারবেন না। সেখানে খাবার বিক্রির ব্যবস্থা থাকবে।

৮। এছাড়াও কি কিছু বিধিনিষেধ রয়েছে?

প্রত্যেক যাত্রীকেই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। এটা বাধ্যতামূলক। ভিড় করা বা ঠেলাঠেলি করা চলবে না। দূরত্ব মেনে লাইনে দাঁড়াতে হবে। বিমান কর্মীরা প্রত্যেক যাত্রীর সিট নম্বর অনুসারে ডাকবে। সেই মতো বিমানে উঠে নিজের আসনে বসে পড়তে হবে। বিমানে ওঠার আগে সকলকে মাস্ক দেওয়া হবে। কেউ যদি নিজের সঙ্গে নিয়ে আসা মাস্ক বদল করেন তাঁকে পুরনো মাস্কটি বিমানবন্দরে রাখা নির্দিষ্ট হলুদ রঙের বিনে ফেলতে হবে।

নিউজবিডি৭১/ এম কে / ২৪ মে ২০২০

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফেসবুকে ২৪ লক্ষের পরিবার

সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ

কালচার

সিলেটে বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা প্রদান করেছে স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন ডে লাইফ সিল্ক ফাউন্ডেশন। সম্প্রতি নিজেদের স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে সংগঠনটির প্রতিনিধিরা হাজির হয় সিলেটের...

কপিরাইট Ⓒ ২০১২-২০২১ নিউজবিডি৭১.নেট । সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বাড়ী- ৪৯ (১ম তলা), রোড- ১২, সেক্টর-১১, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০, বাংলাদেশ। প্রকাশক- মোহাম্মদ মানিক খান