Connect with us

Hi, what are you looking for?

Newsbd71Newsbd71

লিড

শীর্ষ সন্ত্রাসী ইকবালের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

শীর্ষ সন্ত্রাসী ইকবালের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী
শীর্ষ সন্ত্রাসী ইকবালের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

মো. জি কে দিলু ,মো. সাজেদুর রহমান : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার কাঁচপুরের সোনাপুর মতিন খান হাউজিং এলাকায় প্রকাশ্য চুরি-ডাকাতি ছিনতাই বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছেন শীর্ষ সন্ত্রাসী ইকবাল ও তার বাহিনী।

এলাকাবাসী জানায়,দীর্ঘদিন যাবত চুরিডাকাতি ছিনতাই ও শিল্পপ্রতিষ্ঠান বাসা বাড়িতে চাঁদাবাজ। খেটে খাওয়া মানুষ সাধারন, গার্মেন্টস শ্রমিক, কর্মচারী, পথচারীরা। কাঁচপুর শিল্পাঞ্চল ও বাণিজ্যিক এলাকা হওয়ার সুবাদে বাহিরের মানুষের বসবাস বেশি। এলাকা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হওয়ার সুবাদে ২৪ ঘন্টায় শিপটিং ডিউটি করতে হয় শ্রমিকদের, রাতের ডিউটিতে যাতায়াতেই ইকবাল বাহিনীর হাতে বিড়ম্বনার স্বীকার হতে হয়। সঙ্গে থাকা নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার আপোষে না দিলে অস্ত্র ঠেকিয়ে প্রাণে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছেন ইকবাল বাহিনী। আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন এলাকাবাসী।

সূত্রে জানা যায়, ইকবাল নামে সোনারগাঁও থানায় ইকবালের নামে ২ ডজন মামলা রয়েছে।বিভিন্ন থানায় শতাধিক মামলার আসামী যাহার মামলা নাম্বারগুলো হলোমএফ আই আর নং ১১ তাং ৬ এপ্রিল ২০১৯ জি আর নং ২৩৬। # এফ আই আর নং ৪৮ তাং ২২ অক্টোবর ২০১৮ ধারা ৯(৩)২০০০ সালের নারী শিশু ও নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩। # এফ আই আর নং ৩৩ তাং ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ জি আর নং ৬৬৯ ধারা ১৯(১)এর ৭(ক)১৯৯০ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন। # এফ আই আর নং ৬৬ তাং ২১ আগষ্ট ২০১৭ ধারা ১৯(১)এর ৯(ক)/২৫ ১৯৯০ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন। # এফ আই আর নং ৫০ তাং ৩০ অক্টোবর ২০১৫ ধারা ১৯(১)এর ৯(খ) ১৯৯০ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন। # এফ আই আর নং ৩৬ তাং ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫ ধারা ১৯(১)এর ৯(খ) ১৯৯০ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন। # এফ আই আর নং ৪৭ তাং২৫ জুলাই ২০০৭ ধারা ৩৭৯/৪১১ পেনাল কোড ১৮৬০। # এফ আই আর নং ৮ তাং ৫ ডিসেম্বর ২০১৯ জি আর নং ৮৭১ ধারা ১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৬/৩৭৯/৫০৬/৩০৭ পেনাল কোড ১৮৬০। # এফ আই আর নং ১ তাং নভেম্বর ২০১৯ জি আর নং ৭৮১ ধারা ১৪৩/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৫০৬/১১৪ পেনাল কোড ১৮৬০। # এফ আই আর নং ১১ তাং ৪ নভেম্বর ২০১৮ জি আর নং ৮১০ ধারা ১৯(এ)১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইন। # এফ আই আর নং ১০ তাং ৪ নভেম্বর ২০১৮ জি আর নং ৮০৯ ধারা ৩৯৯/৪০২/৩৪ পেনাল কোড ১৮৬০। # এফ আই আর নং ১১ তাং ৯ জুলাই ২০১৬ ধারা ৪৫৭/৩৮০ পেনাল কোড ১৮৬০। # এফ আই আর নং ৫০ তাং ১২ নভেম্বর ২০০৭ ধারা ৮/৩০ ২০০০ সালের নারী শিশু ও নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩। # এফ আই আর নং ৮(১২)১৯ তাং ৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ধারা ১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৬/৩৭৯/৫০৬/৩০৭ পেনাল কোড ১৮৬০। এতোগুলো মামলা থাকার পরও রহ্যস জনক কারনে ইকবাল বাহিনীর হাতামূল গ্রেফতার করা হচ্ছে না। স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন জেনেও না জানার ভান করছে।

ভুক্তভোগীরা আরো জানায় সোনারগাঁও থানায় শতাধিথক জিডি ও শতাধিথক মামলা প্রদান করেও কোন প্রকার আইনি সহযোগিতা পাচ্ছি না।

সরেজমিনে ঘুরে জানাগেছে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গার্মেন্টস শ্রমিক পথচারী ২০/৩০ জন জানান, ইকবাল নামের ডাকাত প্রকাশ্য রাত ১২ টার পরে, তার সহচর ১৫/২০ জন সঙ্গে নিয়ে জনসম্মূখে আমাদের অস্ত্রের মূখে জিম্মি করে। আমাদের (শ্রমিক পথচারীদের) সঙ্গে থাকা টাকাপয়সা মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে যায়। এমন গত ২৫/২/২০. এনজিল চাকমা (২০) পিতা অজ্ঞাত, নিপায়ন চাকমা(২৫) পিতা জ্যাতিময় চাকমা, রিতা চাকমা(২২) পিতা অজ্ঞাত, সোনাবী চাকমা, থানা পানছড়ি, জেলা খাগরাছড়ি। ভোর রাতে তাদের কারিনা টাওয়ার সংলগ্ন থেকে, সাথে থাকা মোবাইল ফোন, টাকা, স্বর্ণ-রৌপা সবকিছু ছিনিয়ে নেন ইকবাল। এমনকি তাদের একই রাতে বাসাবাড়ি দরজা জানালা ভেঙ্গে সকল প্রকার অর্থ স্বর্ণগয়না লুটপাট করেন। এমন ঘটনার কথা শুনে শতাধিথক চাকমা একত্র হয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানান।

এধরনের শত শত শ্রমিক পথচারীদের সঙ্গে থাকা অর্থ মোবাইল ফোন হাতিয়ে নেওয়ার ব্যাপক অভিযোগ রয়েছে ইকবালের বির“দ্ধে। কাঁচপুর সোনাপুরে ইকবাল সন্ত্রাসীকে দিয়ে প্রভাবশালী এক নেতায় ১৩টি স্থানীয় বসত বাড়ি দখল করেন।বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরধারীতে থাকলেও, তারা অদৃশ্য কোন কারণে নিরব ভূমিকা পালন করছে বলে ভুক্তভোগী বলেন। গত ৯/৩/২০ রাত সাড়ে ১২ টার সময় আমার পাশের বিল্ডিং ইসমাইল ফরাজির ভাড়াটিয়া সাজ্জাদ হোসেন নামের একটি ছেলেকে, কাঁচপুর বাসষ্ট্যান্ড থেকে অপহরণ করে নিয়ে যান। সাজ্জাদের সাথে ছিলো ডিসকভারি হোন্ডা,এন্ড্রয়েড আইফোন এবং চারটি স্বণের্র আংটি কেড়ে নেন ইকবাল বাহিনী। তারপরে তাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে একটি বাড়ির ছাদে নিয়ে রড দিয়ে মেরে শরীরের বিভিন্ন অংশ জখম করে। এক লক্ষ টাকার মুক্তিপণ দাবি করেন। এক পর্যায় সাজ্জাদের বোন কুলসুম তার মোবাইল ফোনে কল আসে সাজ্জাদ অপহরণ হয়েছেন। এক লক্ষ টাকা না দিলে প্রাণে মেরে ফেলবে। পরে এক লক্ষ টাকা দিতে বাধ্য হয়েছেন তার পরিবার। এবিষয়ে সোনারগাঁও থানা পুলিশকে অবহিত করলে তারা বিষয়টি কোন প্রকার আমলে নেননি। ইকবাল কাচপুর সোনাপুরের হারুন মিয়ার ছেলে। ইকবালের বাবা একজন কাঁচপুর কাঁচা বাজার বাসষ্ট্যান্ডে ফুটপাতে কাঁচামাল বিক্রি করেন। আর তার ছেলে ইকবাল পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন চুরি ডাকাতি এবং ছিনতাইকারীর মত ঘৃণ্য পেশা। এমন কর্মকান্ডে বেশ ভালো টাকার মালিক বনে জানা গেছে।

সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, তার নামে থানায় মামলা আছে, আমি বিষয়টি দেখবো।

নিউজবিডি৭১/এম কে / ২৪ জুন ২০২০

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফেসবুকে ২৪ লক্ষের পরিবার

সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ

কালচার

সিলেটে বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা প্রদান করেছে স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন ডে লাইফ সিল্ক ফাউন্ডেশন। সম্প্রতি নিজেদের স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে সংগঠনটির প্রতিনিধিরা হাজির হয় সিলেটের...

কপিরাইট Ⓒ ২০১২-২০২১ নিউজবিডি৭১.নেট । সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বাড়ী- ৪৯ (১ম তলা), রোড- ১২, সেক্টর-১১, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০, বাংলাদেশ। প্রকাশক- মোহাম্মদ মানিক খান