Connect with us

Hi, what are you looking for?

Newsbd71Newsbd71

বাণিজ্য

সবজির ভালো দাম পেয়ে খুশি নরসিংদীর কৃষকরা

সাইফুল ইসলাম রুদ্র: অতিবৃষ্টি ও বন্যার কারণে গত দুই মৌসুমে সবজির ফলন ভালো হয়নি, তবে এবার সেই ক্ষতি কাটিয়ে উঠেছেন নরসিংদীর সবজি চাষিরা। পাশাপাশি ভালো দাম পাওয়ায় কৃষকের মুখে ফুটে উঠেছে হাসি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের দেওয়া তথ্যমতে, জেলার ৬টি উপজেলায় ৮ হাজার ২৮৬ হেক্টর জমিতে এবার শীতকালীন সবজি চাষ হয়েছে। এর মধ্যে ফুলকপি, বাঁধাকপি, মুলা, করলা, বরবটি, শিম, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, টমেটো ও বিভিন্ন জাতের শাক রয়েছে। কয়েক বছর ধরে জেলার কৃষকদের কীটনাশকমুক্ত সবজি চাষে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। তাই এবার সবজির বাম্পার ফলন হয়েছে।

কয়েক বছর ধরে দেশে হরতাল-অবরোধের মতো কর্মসূচি না থাকায় পণ্য পরিবহনে কৃষকের বাড়তি ভাড়া গুনতে হচ্ছে না। এছাড়া বাজারে দামও ভালো পাওয়া যাচ্ছে। জেলার শিবপুর, তালতলী, মরজাল, বাড়ৈচা নারায়ণপুর, রাধাগঞ্জ, চরনগরদী, জিনারদী, কালিরহাটসহ বিভিন্ন পাইকারি বাজার হয়ে উৎপাদিত সবজি যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন স্থানে।

শিবপুর উপজেলার কামরটেক গ্রামের জসিম উদ্দিন জানান, এবার দুই বিঘা জমিতে লাউ, বাঁধাকপি ও ফুলকপি চাষ করেছেন তিনি। দেড় লাখ টাকা খরচ হয়েছে তার। এরই মধ্যে তিনি দুই লাখ টাকার সবজি বিক্রি করেছেন। আরও এক লাখ টাকার সবজি বিক্রির আশা করছেন তিনি।

রায়পুরা উপজেলার নিলক্ষা গ্রামের কৃষক হানিফ মিয়া জানান, তিনি এ বছর প্রায় এক বিঘা জমিতে শিম চাষ করেছেন। তিনি তার জমিতে কয়েক ধরনের শিম চাষ করেছেন।

নরসিংদী সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবদুল হাই বলেন, কৃষি বিভাগের নজরদারিতে জেলায় উৎপাদিত সবজির বেশিরভাগই কীটনাশকমুক্ত। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় সবজির বাম্পার ফলন হয়েছে। এদিকে বাজারে দাম ভালো পাওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে।

নিউজবিডি৭১/ এম কে / ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফেসবুকে ২৪ লক্ষের পরিবার

বাংলাদেশ

ইসলাম

নূর হোসাইন: জামিয়াতুন নূর আল কাসেমিয়ার আরবী সাহিত্য বিভাগের উদ্যোগে আরবি দেওয়ালিকা ‘আন-নূর’ প্রকাশিত হয়েছে। শনিবার (১৮ ডিসেম্বর) বিকাল ৫টায় আনুষ্ঠানিকভাবে দেয়ালিকার মোড়ক উন্মোচন...

কপিরাইট Ⓒ ২০১২-২০২১ নিউজবিডি৭১.নেট । সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বাড়ী- ৪৯ (১ম তলা), রোড- ১২, সেক্টর-১১, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০, বাংলাদেশ। প্রকাশক- মোহাম্মদ মানিক খান